বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট: কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

আগের সংবাদ

১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন

পরের সংবাদ

ছাত্রলীগকে ইতিবাচকভাবে তুলে ধরতে প্রতিবছর ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টস কনভেনশন করা হবে

প্রকাশিত হয়েছে: মে ১০, ২০১৮ , ১২:১৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ১০, ২০১৮, ১২:১৪ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পরবর্তী নেতৃত্বে মেধাবী, দক্ষ, ছাত্র উপকারী এবং মানবিক ছাত্রনেতা আসা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন ছাত্রলীগের বর্তমান শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তিনি বলেন, প্রমাণসাপেক্ষে যাচাবাছাই করে ছাত্রলীগের সকল ইউনিট এবং ছাত্রলীগের সকল কমিটি থেকে অনুপ্রবেশকারী ছাত্রদল-শিবিরের এজেন্টদের বহিষ্কার করা হবে।

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষায় ৫ম হয়ে আইন বিভাগে ভর্তি হওয়া এই ছাত্রনেতা মনে করেন, আগামী কমিটির প্রধান দায়িত্ব সাধারণ শিক্ষার্থীদের কল্যাণে আরো এশি করে কাজ করা এবং বন্ধবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠায় নির্লোভ ও দক্ষ ভূমিকা পালন করা। যা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে আগামীতে ক্ষমতায় আনতে সাহায্য করবে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৯তম কাউন্সিল ১১ও ১২ মে। তার আগে ক্যাম্পাসটাইমসের মুখোমুখী হয়েছেন সভাপতি পদপ্রত্যাশী এই ছাত্রনেতা। তার সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন ইফতেখার শাকের। নীচে সাক্ষাৎকারের গুরুত্বপূর্ণ অংশ তুলে ধরা হলো। 

দায়িত্ব পেলে সাধারণ ছাত্রদের জন্য কী করবেন?
গোলাম রাব্বানীঃ আমাদের কাজই হবে সাধারণ ছাত্রদের কল্যাণে। ছাত্রলীগের শিক্ষার্থীদের জন্য যা যা করণীয় তাই করবে। দেশে নিরক্ষরতা দূরীকরণে আরো সক্রিয় ভূমিকা পালন করা হবে।

ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের জন্য আপনার পরিকল্পনা কী?
গোলাম রাব্বানীঃ ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা অনেক সময় অসুস্থ হলে তাদের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয়। তা যেন না করতে হয় তাই একটা অনুদান ফান্ড করার পরিকপ্লনা আছে। আর সকল কাজ হবে নেতা কর্মীদের পরামর্শে। এককভাবে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হবে না। সকল ইউনিটে মেধা শ্রম, ত্যাগ সর্বোপরি যোগ্যতার মূল্যায়নের নিশ্চয়তা করা হবে।

আপনি তো মানবিক ছেত্রনেতা হিসেবে তৃণমূলে পরিচিত, তো পদ পেলে কী কী করবেন? 

গোলাম রাব্বানীঃ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত, মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাবৃত্তির ব্যবস্থা করা হবে।

ডাকসু সম্পর্কে কী বলবেন? 

গোলাম রাব্বানীঃ ডাকসুসহ সকল বিশ্ববিদ্যালয়- কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের ব্যবস্থা ছাত্রলীগ দায়িত্ব নিয়ে করবে।

নেতা কর্মীদের সাথে কাউন্সিল স্থল পরিদর্শনে গোলাম রাব্বানী 

বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচার হয়। এই বিষয়ে আপনার কী করণীয়? 

গোলাম রাব্বানীঃ ছাত্রলীগের নিজস্ব নিউজ পোর্টাল ও সারাদেশের সকল ইউনিটের জন্য ডিজিটাল ডাটাবেজ প্রস্তুত করা হবে।

আপনার বিরুদ্ধে অনেক গুজব ছড়ানো হচ্ছে এসব বিষয়ে কী বলবেন?
গোলাম রাব্বানীঃ দেখুন আমার পরিবার একটি আওয়ামী লীগ পরিবার। আমার মা ছাত্রলীগের নেত্রী ছিলেন। তা অন্যের কথায় ভেস্তে যাবে না। মায়ের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নিজেই জানেন। আমার ভাই ঢাবিতে ছাত্রলীগ করেছেন এবং তিনি বর্তমানে পুলিশে এএসপি। আর আমি মানুষ হিসেবে কেমন তা ঢাবির যেকোন শিক্ষার্থীকেই জিজ্ঞাসা করলেই জানবেন। সুতরাং গুজব ছড়িয়ে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা করছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং বানোয়াট।

আগামী নির্বাচন নিয়ে আপনার কী ভাবনা?
গোলাম রাব্বানীঃ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সকল নির্দেশনা মানতে আমি ব্যাক্তিগতভাবে প্রস্তুত। গত নির্বাচনে আগুন সন্ত্রাসীদের ধরিয়ে দিয়ে আমি নিজে ডিএমপি পুরস্কার পেয়েছি। আর যদি দায়িত্ব পাই তাহলে সক্রিয়ভাবে নেতাকর্মীদের নিয়ে কাজ করব। তবে আমার একটি পরিকল্পনা আছে। তাহলো- ছাত্রলীগের কর্মীদের নিয়ে একটি আইটি সেল করব। যেখানে কর্মীরা তাদের সুযোগমত কাজ করবে। ছাত্রলীগে ও আওয়ামী লীগের ভালো দিকগুলো তুলে ধরবে।

গোলাম রাব্বানী 

ঢাবির সান্ধ্যকালী কোর্স ও কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের উন্নয়ন নিয়ে আপনি কী বলবনে?
গোলাম রাব্বানীঃ দেখুন অনেকগুলো বিভাগে সান্ধ্যকালীন কোর্স রয়েছে। যা হঠাৎ করে বন্ধ করার জন্য বললে সাধারণ শিক্ষার্থীরা সমস্যার মুখোমুখী হবে। তাই আমি মনে করে প্রশাসনের সাথে ধারবাহিকভাবে আলোচনা করলে একটা ফলাফল বের করা সম্ভব। আর কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের উন্নয়ন কাজ ধরা এটা ঢাবি শিক্ষার্থীদের এখন প্রাণের দাবি। এ বিষয়েও আমি ঢাবি প্রশাসনের সাথে কথা বলবো। এবং জোড়ালো দাবি জানাব। আশাকরি ইতিবাচক ফল পাব। আর আপনারা জানেন, ঢাবির যে নতুন নতুন ভবন হচ্ছে এবং হয়েছে সেগুলো কিন্তু আমাদের প্রিয় নেত্রীই দিয়েছেন। তা ভুলে গেলে চলবেন না।

নিজের লেখা বই হাতে পাঠক ও নেতা-করমীদের সাথে গোলাম রাব্বানী 

কোটা সংস্কার নিয়ে কী বলবেন?
গোলাম রাব্বানীঃ এ বিষয়ে আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী যা বলেছেন তাই আমাদের বক্তব্য। তিনি যেভাবে বলবেন তাই হবে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের বলব মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপর ভরসা রাখুন, সব পাবেন। তিনি একজন শিক্ষাহিতৈষী প্রধানমন্ত্রী। সুতরাং এসব বিষয়ে তিনি সবার জন্য কল্যাণকর সিদ্ধান্তই নিবেন।

বিশ্বপরিমন্ডলে ছাত্রলীগকে তুলে ধরতে আপনার করণীয় কী বলে মনে করেন? 

গোলাম রাব্বানীঃ বিশ্বপরিমন্ডলে ছাত্রলীগকে ইতিবাচকভাবে তুলে ধরতে সংগঠনেএ উদ্যোগে প্রতিবছর ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টস কনভেনশন আয়োজন করা হবে।

দায়িত্ব নেয়ার পর সবাইত আগে যা বলে তা ভুলে যায়, আপনিও ভুলে যান

গোলাম রাব্বানীঃ আমি দায়িত্ব নেয়ার পর কী আমার স্মৃতি লোপ পাবে নাকি? আর আমি অন্যান্যদের  মত নয়। নিজেকে একটু ব্যাকিতক্রমই মনে করি। সুতরাং আমি যা বিশ্বাস করি তাই বলি এবং কাজ করি।

আপনাকে ধন্যবাদ